” মাতাল ”
রুদ্র ম আল-আমিন

যদি আজি শিক্ষিত না হয়ে
মূর্খ হতাম,,,
তবে প্রতিরাতে মদ খেয়ে মাতলামি করিয়া যেতাম।
রাত্রী হলেই
হয়তো বুদ হয়ে থাকিতাম তোদের মাঝে।
গায়ের গায়ের কাপড় আলগা করিয়া
হয়তো পড়িয়া থাকিতাম বেশ্যাখানার পাশে।
সকাল হলে না জানি
কতলোকে নাক ছিটকাতো আমায় দেখে।
বউয়ের ঝগড়া মিটে যেত
যখন শুনিত তোমার নাগর পড়িয়া রহিয়াছে সরাইখানার পাশে।
মায়েবাপে হয়তো এরুপ দেখিয়া
কথা কহিবার চাহিত এক বা দুদিন পরে
হয়তো কিছু বলিতেই
তেড়ে উঠিতাম তাহাদের দিকে।
কারন, ইহাতেই আমার যে বেশ শান্তি মেলে।
পাড়ার লোকেরা জড়ো হয়ে
হয়তো বা যখন হইতো বাদী দলে দলে
সকালেই তাহার বিচার করিত মাতবরে তবে।
নিরুপায় হ’য়ে হয়তো বলিতামঃ
নেশার ঘোরে তখুন বুঝিনাই আমি।
উঠোনভরি দুকান মলে দিতো এর চেয়ে আর কি-বা করিবে সকলই।
হয়তো দুদিনও থাকিতো না মনে
এর পর ঘর দোর দিত যদি মূর্খ হইতাম তবে।
এখুনো রাত্রী হয় সরাইখানায় যাই ও বটে
লোকে ভাবে
বাসীপচা মদ গিলে ফিরিতেছে সেই ছেলেটাই বটে।
কিসের শিক্ষিত হলাম ভবে,
কেন পারি না মাতালের মতন বকা দিতে?
তবে কি আমি শিক্ষিত নই?
November 29.2018